বিচিত্র

তুলা: কেমন যাবে ২০২৩

ইংরেজিতে একটি প্রবাদ আছে ‘ব্লাড ইজ থিকার দ্যান ওয়াটার’ কথাটি এ বছর মাথায় গেঁথে নিন প্রিয় তুলা। উত্থান-পতনের দিনগুলোতে পরিবার-পরিজনই আপনার সবচেয়ে বেশি সহায়ক হবে। 
ইংরেজিতে একটি প্রবাদ আছে ‘ব্লাড ইজ থিকার দ্যান ওয়াটার’ কথাটি এ বছর মাথায় গেঁথে নিন প্রিয় তুলা
ইংরেজিতে একটি প্রবাদ আছে ‘ব্লাড ইজ থিকার দ্যান ওয়াটার’ কথাটি এ বছর মাথায় গেঁথে নিন প্রিয় তুলা

ইংরেজিতে একটি প্রবাদ আছে 'ব্লাড ইজ থিকার দ্যান ওয়াটার' কথাটি এ বছর মাথায় গেঁথে নিন প্রিয় তুলা। উত্থান-পতনের দিনগুলোতে পরিবার-পরিজনই আপনার সবচেয়ে বেশি সহায়ক হবে। 

মনে রাখবেন, জীবন নামের ফুলবাগানে ভালোবাসা নিত্য মৌতাত ছড়ায়। ভালোবাসার সুরে নিজেকে মাতিয়ে রাখুন।

রাশিফল অনেকে বিশ্বাস করেন, অনেকে করেন না। বিশ্বাস-অবিশ্বাসের জায়গাটা একান্ত ব্যক্তিগত। শুধু আগ্রহী পাঠকদের জন্য অ্যাস্ট্রোসেইজ.কম টাইমস অব ইন্ডিয়ার ২০২৩ সালের রাশিফল থেকে দ্য ডেইলি স্টারের এই উপস্থাপনা

শরতের আকাশে যেমন তুলোর পেঁজার মতো মেঘ উড়ে বেড়ায়, তেমনি তুলা রাশির জাতকেরাও জীবনের পথে পরিভ্রমণরত এক একটি ব্রাউনিয় কণা। 

প্রিয়জনের সুখের জন্য এ বছর নিজেকেও ছাড়িয়ে যেতে পারেন প্রেমিক তুলা। 

তুলা রাশির জাতক-জাতিকাদের জন্য বছরের শুরুতেই শনি গ্রহ চতুর্থ ঘরে অবস্থান করবে। তবে জানুয়ারির মাঝামাঝিতে এটি পঞ্চম ঘরে চলে যাবে। যেখানে অপেক্ষা করে থাকবে ঘটনাবহুল সময়ের। শনির ঘর বদলের সময়টিতে আপনার জীবনে উল্লেখযোগ্য ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে।

এ সময় বৃহস্পতি থাকবে তুলা রাশির ষষ্ঠ ঘরে। তবে এসময় আর্থিক বিষয়গুলো সামলে চলতে হবে তুলা জাতক-জাতিকার। নয়তো পকেটে হালকা টান পড়তে পারে।

এপ্রিল মাসের দিকে বৃহস্পতি তুলার সপ্তম ঘরে এসে বসবে। এ সময় উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে মনে তৈরি হতে পারে সংশয়, তবে মনকে সঠিক গতি দেওয়া জরুরি। নয়তো উন্নতির সুযোগ থাকলেও সব পরিকল্পনা ভেস্তে যেতে পারে। 

দ্বিধা-দ্বন্দ্বের অবসান ঘটাতে পারলে তুলার জন্য অপেক্ষা করে আছে সুখকর দাম্পত্যজীবন আর সঠিক সব সিদ্ধান্তের বছর। গুরুজনদের সঙ্গে অহেতুক বিবাদে জড়াবেন না প্রিয় তুলা। অভিজ্ঞতার দাম দিতে শিখুন। 

মে মাসে বৃহস্পতি-রাহুর মিলনে যে গুরুচণ্ডাল দশার সৃষ্টি হবে, সেসময়ে সব ধরনের উত্তেজনা থেকে নিজেকে দূরে রাখুন। সহ্যশক্তি বৃদ্ধি করলে সাফল্য খুব একটা দূর পাহাড়ের চূড়া নয় আপনার জন্য। 

অন্য সব রাশির মতো তুলাকেও মনে রাখতে হবে, রেগে গেলেন তো হেরে গেলেন। ষড়রিপুর এই অতি সাধারণ রিপুটি থেকে নিজেকে যতটা মুক্ত রাখতে পারবেন, ততই মঙ্গল। 

মানসিক চাপ বর্তমান জীবনের অভ্যেসে পরিণত হয়েছে, তাই বারবার রেগে যাওয়া বুদ্ধিমানের কাজ হবে না তুলা রাশির জাতক-জাতিকাদের। ধৈর্য ধরে থাকলে জয়গান গাইবার সুযোগ আসবে শিগগিরই। পাখির মতো উড়াল দিতে না পারলেও অন্তত প্লেনে চড়ে বিদেশ-বিভূঁই ঘুরে আসতে পারেন। গ্রহের গতিবিধি এ বছর তুলার উপযোগী করেই নকশা করবে যাত্রাপথ। 

ব্যাংক ব্যালেন্স বাড়তে পারে বছরের শুরুতেই।

পরিবর্তনের নাগরদোলার ওপরে থাকবেন না নিচে, তা নির্ধারণ করবে নিজেরই সিদ্ধান্ত। চাকরিবদলের যোগ দেখা যাচ্ছে তুলার। 

ভালোবাসার মাস ফেব্রুয়ারিতে স্থির থাকতে পারবেন না তুলা রাশির জাতকেরা। আসতে পারে শারীরিক অসুস্থতা, তাই আগে থেকে সাবধান থাকুন। 

তাড়াহুড়োর জীবনে আমরা প্রায়ই নিজের খাওয়া-দাওয়া নিয়ে অসচেতন হয়ে পড়ি। এমনটা করলে চলবে না একেবারেই। খরচাপাতিও বাড়বে। তাই সচেতনতাই সর্বাপেক্ষা সক্রিয় হাতিয়ার। 

এপ্রিলে টাকা-কড়ির হাতে এপ্রিল ফুল হবেন না। গোয়েন্দাগল্পের মতো অচেনা উৎস থেকে অর্থপ্রাপ্তির সম্ভাবনা আছে ঠিকই, তবে একটু সামলে! প্রতারণার শিকার যাতে না হন সেদিকে খেয়াল রাখবেন। এই সময়টাতে নিজেকে চালকের আসনে বসাতে সাত-পাঁচ ভেবে নেওয়া দরকার তুলা রাশির। যাত্রীর আসনে বেশি নিরাপদ থাকবেন। নিয়ন্ত্রণ নয়, নিরাপত্তাই হোক সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ। 

বাকি বছরটা ভারসাম্য ধরে রাখতে রাখতে কেটে যাবে তুলা রাশির জাতক-জাতিকাদের। অনেকদিনের আটকে থাকা কাজগুলোতে সাফল্য যেমন পাবেন, তেমনি নতুন নতুন বাধার সম্মুখীন হওয়াও অসম্ভব নয়। 

মনের শেকল ছিঁড়ে খোলা আকাশে ওড়ার বছর কাটবে তুলা রাশির। বিশেষত তারুণ্যের জয়গানে মাতোয়ারা হবে জীবন। 

অনুপম রায়ের সঙ্গে গলা মিলিয়ে তুলা রাশির জন্য শুভকামনা,  'তোমার ঊর্ধ্বগামী বালিশ ছেঁড়া, স্বপ্ন ধোঁওয়া উড়ছে, উড়ুক!' স্বপ্নের ডানায় ভর দিয়ে ইকারাস হবার দিন আর বেশি দূরে নয়, প্রিয় তুলা। তাই স্বপ্নদের উড়তে দিন, স্বপ্নের সঙ্গে উড়ে চলুন। 

গ্রন্থনা: অনিন্দিতা চৌধুরী

 

 

Comments