ক্যাম্পাস

গাছ কেটে চুয়েটে গবেষণাগার, ছবি তোলায় শিক্ষার্থীদের ঠিকাদারের হুমকি

গতকাল সোমবার এ ঘটনা ঘটে বলে জানান চুয়েটের ছাত্রকল্যাণ দপ্তরের পরিচালক রেজাউল করিম
চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। ফাইল ছবি সংগৃহীত

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) গবেষণাগার নির্মাণের জন্য কেটে ফেলা গাছের ছবি তোলায় দুই শিক্ষার্থীকে হুমকি ও তাদের সঙ্গে অশোভন আচরণের অভিযোগ উঠেছে এক ঠিকাদারের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত ঠিকাদার নাঈম খানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছেন শিক্ষার্থীরা।

গতকাল সোমবার এ ঘটনা ঘটে বলে জানান চুয়েটের ছাত্রকল্যাণ দপ্তরের পরিচালক রেজাউল করিম।

ভুক্তভোগী ও শিক্ষার্থীরা জানান, চুয়েট কেন্দ্রীয় মসজিদের পাশে বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র–সংলগ্ন স্থানে গাছ কেটে কেন্দ্রীয় গবেষণাগারের নির্মাণকাজ চলছে। এনকে ট্রেডার্সসহ দুটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এ কাজ করছে। গতকাল দুপুর আড়াইটার দিকে কাটা গাছগুলোর ছবি তুলতে যান চুয়েটের স্থাপত্য বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শোভন লাল সরকার। তখন শোভনকে ছবি তুলতে বাধা ও তার সঙ্গে বাজে আচরণ করেন ঠিকাদার নাঈম খান ও তার সহযোগীরা।

শোভন লাল সরকার বলেন, অভিযুক্ত ঠিকাদার নাঈম খান আমাকে বলেন, এখানে শিক্ষার্থীরা কেউ তার অনুমতি না নিয়ে ছবি তুলতে কিংবা দাঁড়াতেও পারবে না। ইলেকট্রনিকস অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ইটিই) বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী সাম্মাউল ইসলাম এই ঘটনার প্রতিবাদ করতে এগিয়ে আসেন। তখন ঠিকাদার নাঈম ও তার সহযোগীরা আমাদেরকে ধাক্কা দেন এবং অশোভন আচরণ করেন।

যোগাযোগ করা হলে অভিযুক্ত নাঈম খান এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

তবে দোষ স্বীকার করে এ ঘটনার জন্য শিক্ষার্থীদের কাছে নাঈম খান দুঃখ প্রকাশ করেছেন বলে জানিয়েছেন চুয়েট ছাত্রকল্যাণ দপ্তরের পরিচালক রেজাউল করিম।

তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, ছাত্রদের লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনাটি আরও পর্যালোচনা করা হবে। ভবিষ্যতে এ ধরনের কোনো ঘটনা যাতে না ঘটে, সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গবেষণাগারটি নির্মাণের জন্য কতগুলো গাছ কাটা হচ্ছে সেটি জানা সম্ভব হয়নি।

Comments