ভ্রমণ

এক ভিসায় যাওয়া যাবে মধ্যপ্রাচ্যের ৬ দেশে

এই মাল্টিপল এন্ট্রি ভিসায় সংযুক্ত আরব আমিরাত, ওমান, কাতার, সৌদি আরবসহ মোট ছয়টি উপসাগরীয় দেশ ঘুরতে পারবেন পর্যটকরা।
ছবি: রয়টার্স

আপনার পাসপোর্টে যদি সেনজেন ভিসা থাকে, তাহলে যেতে পারবেন সেনজেনভুক্ত ২৭টি দেশের যেকোনোটিতে। ঠিক একই ধরনের সুবিধায় উপসাগরীয় ছয়টি দেশে ভ্রমণ সুবিধা নিয়ে আসছে নতুন ভিসা 'জিসিসি গ্রান্ড ট্যুর'।

সোমবার খালিজ টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই মাল্টিপল এন্ট্রি ভিসায় সংযুক্ত আরব আমিরাত, ওমান, কাতার, সৌদি আরবসহ জিসিসিভুক্ত মধ্যপ্রাচ্যের মোট ছয়টি দেশ ঘুরতে পারবেন পর্যটকরা।

ভ্রমণ ও পর্যটন শিল্পের কর্মকর্তারা বলেছেন, এই ভিসার আওতায় তিনটি দেশে দুই রাত করে অবস্থান ও দর্শনীয় স্থান ঘুরে বেড়ানোর জন্য খরচ হতে পারে প্রায় ৪ হাজার থেকে ৫ হাজার দিরহাম, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৯৫ হাজার থেকে ১ লাখ ২৭ হাজার টাকা।

গত সপ্তাহে অ্যারাবিয়ান ট্রাভেল মার্কেটে মন্ত্রী পর্যায়ের আলোচনার সময় কর্মকর্তারা জানান, 'জিসিসি গ্র্যান্ড ট্যুরস' ভিসা এ বছরের মধ্যেই চালু হতে পারে।

এক্সপিডিয়ার গ্লোবাল মার্কেটের ভাইস প্রেসিডেন্ট রেহান আসাদ মনে করেন, এই ভিসার মাধ্যমে উপসাগরীয় অঞ্চলে পর্যটন খাত আরও প্রসারিত হবে।

তিনি বলেন, 'আমরা ১ কোটি মানুষের ওপর একটি গবেষণা চালিয়েছি এবং ট্যুর প্যাকেজ তৈরি করব মানুষের চাহিদার ওপর ভিত্তি করেই।'

তিনি জানান, এই ভিসার আওতায় তাদের ট্যুর প্যাকেজের প্রাথমিক ফোকাস হবে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও সৌদি আরব। তবে, বিভিন্ন বিকল্প বেছে নেওয়ার সুবিধা থাকবে পর্যটকদের জন্য।

ট্রাভেজির সহযোগী নির্বাহী আনাস আনানে বলেন, 'একটি দেশের জন্য ফ্লাইট ও দর্শনীয় স্থান ঘুরে দেখতে জনপ্রতি ১ হাজার ৫০০ দিরহাম থেকে ভ্রমণ প্যাকেজ শুরু হবে৷ উপসাগরীয় দেশগুলোর সার্বিক পরিস্থিতি ও পর্যটন মৌসুমের ওপর নির্ভর করে এই খরচ বাড়তে বা কমতে পারে।'

লাস্ট মিনিট ট্যুরিজমের নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ ফারোজ বলেন, 'আমাদের দুবাই, ওমান ও কাতারের জন্য প্যাকেজ থাকবে। যারা আমাদের ট্যুর প্যাকেজ কিনবেন, তাদের প্রথমে দুবাই নিয়ে যাওয়া হবে। তারপর সেখানে থেকে পরবর্তী গন্তব্যে। আর এসব প্যাকেজ নিয়মিত প্যাকেজের তুলনায় অন্তত ২৫ শতাংশ কমে পাওয়া যাবে।'

Comments